সংবাদ শিরোনাম

 

নিজস্ব প্রতিবেদক : বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, ‘থাইল্যান্ডের সঙ্গে বাণিজ্য বাড়াতে উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। চাইলে বাংলাদেশ সরকার ঘোষিত ১০০টি বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলে বিনিয়োগ করতে পারেন থাই উদ্যোক্তারা। সরকার বিশেষ অর্থনৈতিক জোনের যে কোনো একটি তাদের জন্য বরাদ্দ দিতে প্রস্তুত আছে।’

বুধবার রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে ‘থাইল্যান্ড উইক-২০১৭’ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাণিজ্যমন্ত্রী এ মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, ‘থাইল্যান্ড একটি ট্রিমেন্ডাস ডেভেলপড কান্ট্রি। কিন্তু বাংলাদেশের সঙ্গে তাদের বাণিজ্যের তেমন প্রসার ঘটেনি। মাত্র ৫০০ মিলিয়ন ডলারের বাণিজ্য আছে। দুই দেশই এখন এটা বাড়াতে উদ্যোগী হয়েছে।’

থাইল্যান্ডে পণ্য রফতানি বাড়ানোর জন্য সেখানকার ব্যবসায়ীদের সঙ্গে বাংলাদেশি ব্যবসায়ীদের যোগাযোগ বাড়ানোর তাগিদ দেন বাণিজ্যমন্ত্রী।

তিনি বলেন, ‘গত বছর আমরা থাইল্যান্ডে একটি স্বতন্ত্র মেলার আয়োজন করেছিলাম। ছয় মন্ত্রী তাতে যোগ দিয়েছিলেন। দুই দেশের রাষ্ট্রপ্রধানের সফরের প্রস্তুতি চলছে। খুব শিগগিরই এ সফর অনুষ্ঠিত হবে।’

‘সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশের উন্নয়নে বিশ্বব্যাংকসহ বিভিন্ন সংস্থা রোল মডেল বলে উল্লেখ করছে’ জানিয়ে তোফায়েল আহমেদ বলেন, ‘এখানে ব্যাপক উন্নয়নের সুযোগ রয়েছে। থাই বিনিয়োগকারীরা এ সুযোগ গ্রহণ করতে পারেন। কারণ থাইল্যান্ডকেও এ দেশের মানুষ চিকিৎসা ও বিনোদনের জন্য উল্লেখযোগ্য ঠিকানা হিসেবে গ্রহণ করেছে।’

মন্ত্রী এ সময় সরকার ঘোষিত ১০০টি অর্থনৈতিক জোনের মধ্যে যেকোন একটি থাইল্যান্ডের বিনিয়োগকারীদের জন্য বরাদ্দের প্রস্তাব দেন।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়, ডিপার্টমেন্ট অব ইন্টারন্যাশনাল ট্রেড প্রমোশন, থাইল্যান্ড সরকার এবং ঢাকায় নিযুক্ত থাই দূতাবাস যৌথভাবে এ মেলার আয়োজক। মেলা চলবে ২৫ মার্চ পর্যন্ত। এর মধ্যে প্রথম দুই দিন (২২ ও ২৩ মার্চ) কেবল ব্যবসায়ীদের জন্য এবং শেষ দুই দিন সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে এ মেলা।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন বাংলাদেশে নিযুক্ত থাই রাষ্ট্রদূত পানপিমন সুওয়াননাপঙ্গি।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম