সংবাদ শিরোনাম

 

মোঃ রাসেল হোসেন, ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম : জেলা সদরের চরাঞ্চলের অম্বিকাগঞ্জ কলেজের বার্ষিক পুরস্কার বিতরণী ও এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠান  বুধবার কলেজ মাঠে অনুষ্ঠিত হয়েছে। কলেজ অধ্যক্ষ জাহাঙ্গীর মোহাম্মদ হাফিজ উদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ময়মনসিংহ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ইউসুফ খান পাঠান। অনুষ্ঠনে বিশেষ অতিথি ছিলেন অম্বিকাগঞ্জ কলেজের প্রতিষ্ঠাতা ও কলেজ পরিচালনা কমিটির সভাপতি আওয়ামীলীগ নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ আব্দুল জলিল, পরানগঞ্জ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মমরোজ আলী সরকার, পরানগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক খায়রুল আলম, মীরকান্দা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও পরানগঞ্জ্ ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ সোলায়মান কবির, সাবেক চেয়ারম্যান মজিবুর রহমান। সভায় কলেজের প্রতিষ্ঠাতা বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ আব্দুল জলিল ও কলেজ অধ্যক্ষসহ অন্যান্যদের দাবীর প্রেক্ষিতে প্রধান অতিথি বলেন, ১৯৯৪ সালে চরাঞ্চলের আলোচিত প্রবীণ আওয়ামীলীগ নেতা এ কলেজটি প্রতিষ্ঠা করেন। কলেজটি সিরতা, পরানগঞ্জ, বোররচরের হাজার হাজার মানুষের মেধা, অর্থ ও শ্রমে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। শিক্ষার মান সন্তোষজনক হওয়ার পরও নানা অজুহাতে ২৩ বছরেও প্রতিষ্ঠানটির এমপিও না হওয়া দুঃখজনক। তিনি আরো বলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল জলিল ভাইয়ের দুটি কাজ তার জীবনের শ্রেষ্ঠ কাজ। একটি হলো মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেওয়া অপরটি হলো অম্বিকাগঞ্জ কলেজ প্রতিষ্ঠা করা। তিনি বলেন, শিল্প কারখানা নয় মাণুষ শিক্ষিত না হলে দেশের প্রকৃত উন্নয়ন সম্ভব নয়। তিনি কলেজটির এমপিও ভুক্তি এবং কলেজটি ডিগ্রী কলেজে রূপান্তর করতে সর্বাত্বক প্রচেষ্ঠা করা হবে। যাতে আগামী দিনে চরাঞ্চলের মেধাবী শিক্ষার্থীরা তাদের প্র্রতিভা বিকাশ করে অবহেলিত মানুষের সেবা করতে পারেন। এছাড়া তিনি পরানগঞ্জ হাসপাতালে চক্ষু সেবাদানে একটি ক্যাম্প স্থায়ীভাবে করার প্রচেষ্ঠা করবেন বলে জানান।সভায় বিদায়ী শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে কলেজের শিক্ষার্থী মোঃ মামুনম, নিলীমা আক্তার রুমা বক্তব্য রাখেন এবং প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী রহিমা আক্তার মানপত্র পাঠ করেন।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম