সংবাদ শিরোনাম

 

নিজস্ব প্রতিবেদক : মিয়ানমার সেনাবাহিনীর নির্যাতনের মুখে পালিয়ে এসে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গা সংকট সমাধানের জন্য আলোচনা করতে মিয়ানমারের উদ্দেশে ঢাকা ছেড়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।

সোমবার বেলা পৌনে একটায় বাংলাদেশ বিমানের একটি ফ্লাইটে ১২ সদস্যের একটি প্রতিনিধিদল নিয়ে মিয়ানমারের উদ্দেশে রওনা হন তিনি।

সফরে রোহিঙ্গা সঙ্কট সমাধানের বিষয়ে মিয়ানমারের সঙ্গে আলোচনা করার কথা রয়েছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর।

প্রতিনিধিদলে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দুই সচিব, পুলিশের মহাপরিদর্শক, বিজিবির মহাপরিচালক, কোস্টগার্ডের মহাপরিচালক, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ সংস্থার মহাপরিচালকসহ মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা রয়েছেন।

সফরে সীমান্তে নিরাপত্তা নিয়ে দুই দেশের মধ্যে দুটি সমঝোতা স্মারক সই হওয়ার কথা রয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা শরীফ মাহমুদ অপু।

আগস্ট মাসের শেষ দিকে মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে কয়েকটি পুলিশি চেকপোস্টে হামলার জের ধরে রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে অভিযানে নামে দেশটির সেনাবাহিনী। অভিযানের নামে বহু রোহিঙ্গাকে হত্যা করে সেনাবাহিনী ও রাখাইন সন্ত্রাসীরা। এছাড়া পুড়িয়ে দেয়া হয় রোহিঙ্গাদের শত শত ঘরবাড়ি। নির্যাতন থেকে বাঁচতে ছয় লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা পালিয়ে এসে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়। এদের বেশিরভাগই শিশু ও নারী। তাদের ফেরত নিতে মিয়ানমারকে বারবার আহ্বান জানিয়ে আসছে বাংলাদেশ।

এ নিয়ে আন্তর্জাতিক মহলের সমালোচনার মধ্যে মিয়ানমারের নেত্রী অং সান সু চির বিশেষ দূত দেশটির দপ্তরবিষয়ক মন্ত্রী উ কিয়া তিন্ত সোয়ে গত ১ অক্টোবর ঢাকায় এসেছিলেন।

২ অক্টোবর রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় তিন্ত সোয়ের সঙ্গে বাংলাদেশ সরকারের বৈঠক হয়। বৈঠক শেষে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী জানিয়েছিলেন, দুই দেশের মধ্যে ফলপ্রসূ আলোচনা হয়েছে।

এছাড়া নিরাপত্তা ইস্যু নিয়ে আলোচনা করতে কিছুদিনের মধ্যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মিয়ানমার সফরে যাবেন বলে সেদিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানিয়েছিলেন।

পরে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীও বলেছিলেন মিয়ানমার সফরে রোহিঙ্গাদের ফেরত নেওয়ার বিষয়ে দেশটির কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলোচনা করবেন তিনি।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম