সংবাদ শিরোনাম

 

নিজস্ব প্রতিবেদক, গাজীপুর : গাজীপুরে শাহাদাত হোসেন সোহাগ নামে এক কলেজছাত্রকে হত্যার দায়ে ৯ জনকে ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন আদালত।

বুধবার দুপুরে গাজীপুরের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালত-১-এর বিচারক ফজলে এলাহী ভূইয়া এ আদেশ দেন।

এ ছাড়া অন্য একটি ধারায় প্রত্যেককে ৬ মাসের কারাদণ্ড ও এক হাজার টাকা করে জরিমানা এবং আরেকটি ধারায় দুই বছরের কারাদণ্ড ও দুই হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- গাজীপুর মহানগরের নিয়ামত সড়ক এলাকার শামসুল হকের ছেলে সেলিম ও একই এলাকার আব্দুল সোবহানের ছেলে আসাদুল ইসলাম, উত্তর ছায়াবীথি এলাকার নাজমুল হকের ছেলে জহিরুল ইসলাম, বিলাশপুর এলাকার বাবুল মিয়ার ছেলে জুয়েল, শেরপুরের ঝিনাইগাতি থানার বাঘেরভিটা এলাকার বাক্কা মিয়ার ছেলে বাক্কা সুমন, দক্ষিণ ছায়াবীথী এলাকার আ. মালেকের ছেলে তৌহিদুল ইসলাম ওরফে প্রিতম, রথখোলা এলাকার সিদ্দিকের ছেলে আরিফ, সামন্তপুর এলাকার লেহাজ উদ্দিনের ছেলে মো. হানিফ এবং উত্তরবিলাশপুর এলাকার মৃত আইয়ুর আলীর ছেলে রিপন আহমেদ জুয়েল।

এদের মধ্যে সেলিম, হানিফ, জুয়েল এবং আসাদুল ইসলাম পলাতক রয়েছেন। রায় ঘোষণার সময় বাকি পাঁচজন আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

গাজীপুর আদালতের এপিপি মো. আতাউর রহমান জানান, সোহাগ গাজীপুরের ভাওয়াল বদরে আলম বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের অনার্স তৃতীয় বর্ষের ছাত্র ছিলেন। ২০১০ সালের ৮ জানুয়ারি সোহাগের বন্ধু কায়সার ফোন করে তাকে জেলা শহরের রাজবাড়ি মাঠে আসতে বলেন। সোহাগ তার বন্ধু নাহিদকে নিয়ে ওই মাঠে গেলে কায়সার ও তার সহযোগীরা হামলা করেন। পরে সোহাগকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এ ঘটনায় সোহাগের পালিত বাবা আবুল হাসেম সুফি জয়দেবপুর থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম