সংবাদ শিরোনাম

 

স্টাফ রিপোর্টার, ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম : উপমহাদেশের সর্ববৃহৎ শাস্ত্রীয় সংগীতের আসর আইসিটি-বেঙ্গল উচ্চাঙ্গ সংগীত উৎসব বাতিলের ঘোষণায় গতকাল বুধবার সকালে ঐতিহাসিক শশীলজ প্রাঙ্গনে ময়মনসিংহের সর্বস্তরের শিল্পী, সংগঠক ও সংক্ষুব্ধ সংস্কৃতি কর্মীরা প্রতিবাদি অবস্থান ও সমাবেশ পালন করে। সকাল ১০ টা থেকে বেলা ১১ টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত সমাবেশে বিশিষ্ট শিল্পী সারোয়ার চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও কবি ইয়াজদানী কোরাইশীর সঞ্চালনায় প্রতিবাদি অবস্থান কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন প্রখ্যাত বংশী বাদক উস্তাদ একেএম সাহাব উদ্দিন খাঁ, প্রখ্যাত বাউল শিল্পী সুনীল কর্মকার, বিশিষ্ট শিল্পী শাহ সাইফুল আলম পান্নু, বিশিষ্ট শিল্পী ও সংগঠক সাংবাদিক নজীব আশরাফ, বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ প্রফেসর আফজাল রহমান, শিল্পী ও সংগঠক মাহাবুব হোসেন শরীফ, সাংবাদিক নিয়ামুল কবির সজল, বিশিষ্ট শিল্পী ও সংগঠক সারোয়ার কামাল রবিন, বিশিষ্ট শিল্পী সুবীর বরণ ধর বিলু, মানবাধিকার নেতা এড. নজরুল ইসলাম চুন্নু, এড. শিব্বির আহমেদ লিটন, সাংস্কৃতিক সংগঠক এড. আব্দুল মোতালেব লাল, নাট্যশিল্পী ডাঃ এম.এন আমিন, বিশিষ্ট নৃত্যশিল্পী ও প্রশিক্ষক নাজমুল হক লেলিন, বিশিষ্ট নৃত্যশিল্পী ও প্রশিক্ষক এসএম মিজানুর রহমান, শিল্পী আমিরুল ইসলাম, বাউল ফেরদৌস, শিল্পী যীষুতোষ তালুকদার, সংগঠক সুনীল পাল, সাংস্কৃতিক সংগঠক রেজাউল করিম আসলাম, শিল্পী বিলকিস খানম পাপড়ী, উপস্থাপিকা দ্বীপ শিখা খান, চিত্রকর ফারুক, কবি আবুল কালাম আল আজাদ, কবি স্বাধীন চৌধুরী, কবি আলী ইউছুফ, কবি সাবিহ মাহমুদ, শিল্পী আমিরুল ইসলাম সাগর, নাট্যকর্মী আবুল হাসেম প্রমূখ। অনুষ্ঠানের শুরুতে উপমহাদেশের অন্যতম ধ্রুপদী ও উচ্চাঙ্গ সংগীত শিল্পী ড. গিরিজা দেবীর মৃত্যুতে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নিরবতা পালনের মাধ্যমে তাঁর প্রতি সম্মান জানানো হয়। সমাবেশে সংক্ষুব্ধ সাংস্কৃতিক কর্মীরা বলেন, বেঙ্গল ফাউন্ডেশন সুস্থ সংস্কৃতির বিকাশে সুদীর্ঘকাল থেকে আন্তরিকভাবে কাজ করে আসছে। বক্তারা দাবি জানান নির্ধারিত সময়ে বেঙ্গল উচ্চাঙ্গ সংগীত উৎসব করার পদক্ষেপ নিতে হবে। বক্তারা আরও বলেন, কোন অজুহাতে কোথাও সংস্কৃতি চর্চার অধিকার ক্ষুন্ন করা যাবে না এবং জাতীয় সংস্কৃতির বিকাশে অগ্রাধিকার দিতে হবে। আলোচনা শেষে সংস্কৃতি কর্মীরা প্রধানমন্ত্রী বরাবর একটি স্মারকলিপি ময়মনসিংহ বিভাগীয় কমিশনারের কাছে হস্তান্তর করেন। স্মারকলিপিতে উল্লেখ ছিল উপমহাদেশের গৌরবময় শাস্ত্রীয় সংগীতের সর্ববৃহৎ আসর বেঙ্গল উচ্চাঙ্গ সংগীত উৎসবের স্থান বরাদ্দ সংক্রান্ত জটিলতায় সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়ে যাওয়ার পরেও বাতিল ঘোষণা করায় সংস্কৃতিক কর্মীরা হতাশ ও ক্ষুব্ধ হয়েছে। সারা বিশ্বে বাংলাদেশের ইতিবাচক ভাবমূর্তি প্রতিষ্ঠায় এই পরিচ্ছন্ন আয়োজনটির গরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছিল। পাশাপাশি শাস্ত্রীয় সংগীত তথা শুদ্ধ সংস্কৃতি চর্চার প্রতি সকল বয়সের বিশেষ করে নতুন প্রজন্মকে সংস্কৃতি মনষ্ক হিসেবে আগ্রহী করে তুলছিল। এই উৎসবটি বন্ধ হলে আমাদের সুস্থ সংস্কৃতির ক্ষেত্রে নেতিবাচক প্রভাব পরবে বলে আমাদের বিশ্বাস। যা আপনারও কাম্য নয়। সেই বিবেচনায় অবিলম্বে এই বিষয়ে একটি ইতিবাচক সিদ্ধান্ত প্রত্যাশা করছি।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম