সংবাদ শিরোনাম

 

শামীম খান, গৌরীপুর ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম : ময়মনসিংহের গৌরীপুরের তানজিলা আক্তার (১২) নামে এক তরুণী ঢাকায় এক পুলিশ অফিসারের বাসা থেকে রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ, ৭মাসেও সেই মেয়ের সন্ধান পায়নি পরিবার। মায়ের অভিযোগ, বিদেশে পাচার বা বিক্রি করে দিয়েছে।মেয়েকে ফিরে পেতে নিজ বাড়িতে সংবাদ সম্মেলন করেন তানজিলার বাবা মোঃ ফখরুল ইসলাম ও তার মা ফজিলা বেগম।
উপজেলার ২নং গৌরীপুর ইউনিয়নের শালীহর গ্রামের মৃত আকবর আলীর পুত্র মোঃ ফখরুল ইসলাম জানান, প্রতিবেশী মোঃ মানিক মিয়ার স্ত্রী মোছাঃ আফরোজা আক্তার তাকে না জানিয়ে তার স্ত্রী ফজিলা বেগমের সাথে কথা বলে ইসলামপুর পুলিশের এসআই মোছাঃ সাবিনা ইয়াসমিনের বাসায় গৃহপরিচালিকার কাজের জন্য প্রায় ১০মাস পূর্বে নিয়ে যায়। এরপর থেকেই তিনি মেয়ের সন্ধান পাননি। তার স্ত্রী ফজিলা বেগম জানান, অভাবের সংসারে প্রতিমাসে ৩হাজার টাকা করে দিবে বলে মেয়েকে নিয়েছিলো। এরপর আর মেয়েকে খোঁজে পাচ্ছি না। ওরা আমার মেয়ে বিদেশে পাচার বা বিক্রি করে দিয়েছে। আফরোক্তা আক্তার ঢাকায় বড়বড় অফিসারদের বাসায় কাজের মেয়ে জোগাড় করে দেয়ার মধ্যস্থতাকারী (দালাল)। আফরোজা আক্তার জানায়, তানজিলা আক্তারের সন্ধান চেয়ে তিনি ঢাকায় দীর্ঘদিন খোঁজেছেন। পুলিশ অফিসার বলেছে সিসি ক্যামেরার ফুটেজে ধরা পড়েছে সে বাসা থেকে পালিয়েছে। ঢাকার দেয়ালে দেয়ালে পোস্টার ছাপিয়ে দিয়েছি। আরো অনেককে কাজে দিয়েছি, কারো সমস্যা হয় নাই। শুধু তানজিলাকেই ২৯মার্চ/১৭ থেকে পাওয়া যাচ্ছে না।
পুলিশ অফিসার সাবিনা ইয়াসমিন জানান, এতো ছোট মেয়ে রাখতে চাইনি, জোর করে আফরোজা রেখে গেছে। আমি অফিসে যাওয়ার পর এসে দেখি বাসায় নেই। এ ব্যাপারে থানায় সাধারণ ডায়রী করা হয়েছে। অপরদিকে এ ঘটনায় ফখরুল ইসলাম বাদী হয়ে গৌরীপুর থানার একটি অভিযোগ দেয়া হয়েছে। গৌরীপুর থানার অফিসার ইনচার্জ দেলোয়ার আহম্মদ জানান, ঘটনাটি ঢাকার এরপরেও এসআই শাহ জালালকে তদন্ত দেয়া হয়েছে।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম