সংবাদ শিরোনাম

 

হাফিজুর রহমান.টাঙ্গাইল জেলা প্রতিনিধি : টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার নারান্দিয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সম্মেলন ২ নভেম্বর বৃহস্পতিবার নারান্দিয়া ইউনিয়ন পরিষদ সংলগ্ন দৌলতপুর উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

ইউনিয়ন ছাত্রলীগের কয়েকজন ত্যাগী নেতা কর্মী নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানায়, সম্মেলনে গঠন তন্ত্র না মেনে ত্যাগী নেতা কর্মীদের বঞ্চিত করে বিবাহিত জয়নাল আবেদীন জনিকে সভাপতি ও চাকুরীজীবি মোজাম্মেল হককে সাধারণ সম্পাদক করায় নেতা কর্মীদের মধ্যে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে। এ বিষয়ে ইউনিয়ন ছাত্রলীগের নেতা কর্মীরা জেলা ছাত্রলীগের হস্তক্ষেপ ও সু-দৃষ্টি কামনা করেছেন।
জানাযায়,সভাপতি জয়নাল আবেদীন জনি দীর্ঘদিন যাবৎ বিবাহিত জীবন যাপন করছে ও সাধারণ সম্পাদক মোজাম্মেল হক নারান্দিয়া টি আর কে এন স্কুল এন্ড কলেজে অফিস সহকারী পদে কর্মরত আছেন।
সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্য প্রদান করেন কালিহাতী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোজহারুল ইসলাম তালুকদার। প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন কালিহাতী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব আনছার আলী বি.কম ও প্রধান আলোচক ছিলেন এফবিসিসিআই এর পরিচালক আওয়ামী লীগ নেতা আবু নাসের। নারান্দিয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের আহ্বায়ক সোহেল রানার সভাপতিত্বে সম্মেলনের উদ্বোধন করেন কালিহাতী উপজেলা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক মনিরুজ্জামান মনির।
বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন কালিহাতী উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন মোল্লা, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম, দপ্তর সম্পাদক আব্দুল কাদের, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার মিজানুর রহমান মজনু, নারান্দিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শুকুর মামুদ, সল্লা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল আলীম, গোহালিয়াবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হযরত আলী তালুকদার, উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আবু মুহাম্মদ জিন্নাহ, নারান্দিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হুরমুজ আলী তালুকদার, সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, এলেঙ্গা পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আনিছুর রহমান মোল্লা, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সদস্য ও সরকারি তিতুমীর কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি পরিতোষ সরকার, টাঙ্গাইল জেলা ছাত্রলীগের সদস্য মাজহারুল ইসলাম কুয়াশা ও রেদওয়ান মাসুদ, কালিহাতী উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মেহেদী হাসান তুহিন, চাঁন মিয়া সরকার, নাহিদুল ইসলাম সিদ্দিকী পলাশ প্রমূখ।
বিবাহিত ও চাকরিজীবি অছাত্রদের নিয়ে কমিটি গঠন করায় ব্যাপক ক্ষোভ বিরাজ করছে ছাত্রলীগের ত্যাগী ও মেধাবী ছাত্রনেতাদের মাঝে। একজন প্রভাবশালী আওয়ামীলীগ নেতা তার ব্যাক্তি স্বার্থে উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক এক সন্তানের জনক বিবাহিত মনিরুজ্জামানকে দিয়ে এ কমিটি গঠন করিয়েছেন বলে ‘অভিযোগ করেছেন ঐ ইউনিয়নের ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা।বিবাহিত ও চাকুরিজীবি অছাত্রদের নিয়ে নারান্দিয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের কমিটি গঠনের বিষয়ে টাঙ্গাইল জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহবায়ক শফিউল আলম মুকুল সাংবাদিকদের জানান,” বিবাহিত ও চাকুরিজীবিদের নারান্দিয় ইউনিয়ন ছাত্রলীগের কমিটি গঠনের বিষয়ে প্রমান দিতে পারলে কালিহাতী উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক কমিটির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।” এ ব্যাপারে কালিহাতী উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক এক সন্তানের জনক মনিরুজ্জামান মনির সাংবাদিকদের জানান,” সভাপতি জনির বিয়ের বিষয়টি আমার জানা নেই।সাধারন সম্পাদক মোজাম্মেল হকের নারান্দিয়া কলেজে চাকরির বিষয়ে আমরা জানি পার্টটাইম। ” নারান্দিয় টি আর কে এন স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ গোলাম মোস্তফা সাংবাদিকদের জানান, “নারান্দিয়া ইউনিয়ন শাখা ছাত্রলীগের নবনিযুক্ত সাধারন সম্পাদক মোজাম্মেল হক আমার কলেজের অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটর। আমার কলেজের গভর্নিং বডির সভাপতি, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মোজহারুল ইসলাম তালুকদার তাকে চাকরি দিয়েছেন। ” নারান্দিয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী মাইনুল ইসলাম মামুন সাংবাদিকদের জানান, “নবনিযুক্ত সভাপতি জয়নাল আবেদীন জনি তিন মাস পূর্বে অন্যজনের স্ত্রী ফুসলিয়ে বিয়ে করেছেন। তার বাবা- মা এখনো এ বিয়ে মেনে নেয়নি।জনি এলেঙ্গাতে বাসা ভাড়া করে বসবাস করছে।নারান্দিয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীরা এই বিতর্কিত কমিটি বাতিল করে প্রকৃত ত্যাগী ও মেধাবী ছাত্রদের নিয়ে কমিটি করার দাবী জানিয়েছে।


মতামত জানান :

 
 
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম