সংবাদ শিরোনাম

 

নিজস্ব প্রতিবেদক : সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের জন্য নতুন করে প্রশাসনের কাছে চিঠি দিয়েছে বিএনপি। চিঠিতে আগামী ৮ নভেম্বরের পরিবর্তে ১১ নভেম্বর সমাবেশ করার অনুমতি চাওয়া হয়েছে।

বিএনপির পক্ষ থেকে দলের জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী জানিয়েছেন, কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারি অ্যাসোসিয়েশনের (সিপিএ) সম্মেলনের কারণে সমাবেশের তারিখ পেছানো হয়েছে।

সোমবার নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে রিজভী জানিয়েছেন, তাদের জানানো হয়েছে যে সংসদ এলাকায় কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারি অ্যাসোসিয়েশন সম্মেলন চলছে। সম্মেলন যেন নির্বিঘ্নে হয়, সে জন্য ৮ নভেম্বরের সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের সমাবেশের কর্মসূচি পেছানো হয়েছে। ১১ নভেম্বর এ সমাবেশ সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে অনুষ্ঠিত হবে। এ ব্যাপারে তারা পুলিশকে চিঠি দিয়েছেন।

মঙ্গলবার (৭ নভেম্বর) ‘জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি’ দিবস উপলক্ষে পরদিন সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের অনুমতি চাওয়ার কথা গত শুক্রবার জানিয়েছিলেন রুহুল কবির রিজভী। সিপিএ সম্মেলনের কারণে সেই সমাবেশ পেছানো হচ্ছে বলে তিনি সোমবার জানান।

রুহুল কবির রিজভী বলেন, ‘আগামীকাল মঙ্গলবার জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস উপলক্ষে শেরেবাংলা নগরে দলের প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের কবরে সকাল ১০টায় দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া নেতা-কর্মীদের নিয়ে শ্রদ্ধা জানাবেন।’

সিপিএ সম্মেলনের কারণে সংসদ ভবন এলাকায় সভা-সমাবেশে নিষেধাজ্ঞা থাকায় ওই কর্মসূচি হবে কি না, সাংবাদিকের এ প্রশ্নের জবাবে রিজভী বলেছেন, ‘আমরা কথা বলছি, আশা করছি যে পেয়ে (অনুমতি) যাব।’

সংবাদ সম্মেলনে রুহুল কবির রিজভী অভিযোগ করেন, রাজনৈতিক কোনো কর্মসূচি না থাকলেও বিএনপির সাম্প্রতিক বিভিন্ন কর্মসূচিতে মানুষের ঢল দেখে সরকার ভীত হয়ে আবারও দেশব্যাপী গণগ্রেপ্তার শুরু করেছে। প্রতিদিন কোনো না কোনো জেলায় কিংবা উপজেলায় মামলা ছাড়াই নেতা-কর্মীদের আটক করে পরে মিথ্যা মামলা দেওয়া হচ্ছে। বর্তমান সরকারের দুঃশাসনে জনগণ অতিষ্ঠ।

বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবদুস সালাম, আতাউর রহমান ঢালী, আবুল খায়ের ভূঁইয়া, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক মীর সরফত আলী প্রমুখ সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ।


মতামত জানান :

 
 
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম