সংবাদ শিরোনাম

 

নিজস্ব প্রতিবেদক : দশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন শুরু হয়েছে। রবিবার বিকাল চারটা ১০ মিনিটে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে দিনের কার্যসূচি শুরু হয়।

অধিবেশনের শুরুতেই চলতি অধিবেশনের জন্য প্যানেল সভাপতি মনোনয়ন দেন স্পিকার। এরপর প্রয়াত সংসদ সদস্য ও বিশিষ্টজনদের নামে শোক প্রস্তাব আনা হয়।

অধিবেশন শুরুর আগে স্পিকারের সভাপতিত্বে কার্য উপদেষ্টা কমিটির বৈঠকে চলতি অধিবেশন ২৩ নভেম্বর পর্যন্ত চালানোর সিদ্ধান্ত হয়। প্রতিদিন বিকাল চারটা থেকে অধিবেশন শুরু হবে।

গত ২৪ অক্টোবর রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ সংবিধানের ৭২ অনুচ্ছেদের (১) দফায় প্রদত্ত ক্ষমতাবলে এই অধিবেশন আহ্বান করেন। জাতীয় সংসদের এ অধিবেশন ৬০ দিনের সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতার জন্য আহ্বান করা হয়েছে।

সংবিধান অনুযায়ী এক অধিবেশন সমাপ্তির পরবর্তী ৬০ দিনের মধ্যে আরেকটি অধিবেশন বসতে হবে। ফলে এ অধিবেশন সংক্ষিপ্ত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। বিশেষ করে আগামী বছরের জানুয়ারি মাসে সংবিধান অনুযায়ী বছরের প্রথম অধিবেশন আহ্বান করতে হবে। আর ওই অধিবেশনে রাষ্ট্রপতি ভাষণ দেবেন। ওই ভাষণের ওপর নিয়ম অনুযায়ী আলোচনা অনুষ্ঠিত হবে।

রেওয়াজ অনুযায়ী বছরের প্রথম অধিবেশন দীর্ঘ হয়ে থাকে। ফলে অষ্টাদশ অধিবেশন সংক্ষিপ্ত হওয়ারই কথা রয়েছে।

সংক্ষিপ্ত হলেও এ অধিবেশনে গুরুত্বপূর্ণ বেশ কয়েকটি বিল পাস ও উত্থাপন হতে পারে। এছাড়া সমসাময়িক বিভিন্ন জাতীয় ও আন্তর্জাতিক গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে আলোচনা হতে পারে।

গত ১৪ সেপ্টেম্বর দশম জাতীয় সংসদের সপ্তদশ অধিবেশন শেষ হয়। গত ১০ সেপ্টেম্বর ওই অধিবেশন শুরু হয়। মোট পাঁচ কার্যদিবসের সপ্তদশ অধিবেশনে দুটি সরকারি বিল পাস হয়। বিল দু’টি হচ্ছে ফৌজদারি কার্যবিধি (সংশোধন) বিল-২০১৭ ও স্থাবর সম্পত্তি অধিগ্রহণ ও হুকুম দখল বিল-২০১৭।

আইন প্রণয়ন সম্পর্কিত কাজ সম্পাদনের পাশাপাশি কার্যপ্রণালী বিধির ৭১ বিধিতে ১৪৭টি নোটিশের মধ্যে ছয়টি গৃহীত হয়। এর মধ্যে তিনটি আলোচিত হয়। এছাড়া ৭১(ক) বিধিতে দুই মিনিটের আলোচিত নোটিশের সংখ্যা ছিল ৩০টি।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম