সংবাদ শিরোনাম

 

নিজস্ব প্রতিবেদক : ওষুধের অনিয়ম প্রতিরোধ ও মনিটরিং ব্যবস্থা জোরদার করতে ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের জনবল বৃদ্ধি করা হচ্ছে।
আজ সংসদে সরকারি দলের সদস্য বেগম মাহজাবিন খালেদের তারকা চিহ্নিত এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এ কথা বলেন।
মন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকার ভেজাল, নকল ও মানহীন ওষুধ বিক্রির বন্ধে বিভাগীয় শহরসহ জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে মডেল ফার্মেসী স্থাপনের উদ্যোগ নিয়েছে। সরকার ইতোমধ্যে ঢাকাসহ সারাদেশে ২০৪টি ফার্মেসীকে মডেল ফার্মেসী হিসেবে অনুমোদন দিয়েছে। সারাদেশে মডেল ফার্মেসী প্রতিষ্ঠার কার্যক্রম চলমান রয়েছে।
তিনি বলেন, গত বছরের জানুয়ারি থেকে চলতি বছরের জুলাই পর্যন্ত সারাদেশে ভেজাল ও নকল ওষুধ উৎপাদন এবং বিক্রির দায়ে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালতে ৩ হাজার ৫৯টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানকে ৭ কোটি ৬২ লাখ ৬৪ হাজার ৬শ’ টাকা জরিমানা করা হয়েছে এবং ৭৮জন আসামীকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদন্ড প্রদান করাসহ ৪৫টি প্রতিষ্ঠান সিলগালা করা হয়েছে। এই সময়ে ১৮ কোটি ৩৫ লাখ ওষুধ জব্দ ও ধ্বংস করা হয়েছে।
মন্ত্রী বলেন, ওষুধের অনিয়ম প্রতিরোধের লক্ষ্যে বিদ্যমান ওষুধ আইনকে আরো যুগোপযোগী ও কঠোর শাস্তির বিধান রেখে প্রস্তাবিত ওষুধ আইন অনুমোদনের জন্য প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম